ম্যাথিউসের সেঞ্চুরিতে দিনশেষে হতাশায় বাংলাদেশ

দিনের প্রথম সেশনে জোড়া উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশকে আশা দেখালেও সফরকারী দলের অভিজ্ঞ ব্যাটার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের দায়িত্বশীল অপরাজিত সেঞ্চুরিতে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিনশেষে বাংলাদেশ শিবিরে হতাশায় কাটলো। শ্রীলঙ্কা তাদের প্রথম ইনিংসে দিনশেষে মাত্র ৪ উইকেটের বিনিময়ে স্কোরবোর্ডে ২৫৮ রান করেছে।

দিনশেষে ম্যাথিউস তার ক্যারিয়ারের ১২তম টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে ১১৪ রানে অপরাজিত আছেন। এছাড়া কুশল মেন্ডিসের ব্যাট থেকে এসেছে ৫৪ রান। বোলিংয়ে বাংলাদেশের পক্ষে অফস্পিনার নাঈম হাসান ২টি উইকেট শিকার করেন। এছাড়া তাইজুল ও সাকিব নেন ১টি করে উইকেট।

রোববার (১৫ মে) চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন সফরকারীরা। শুরুতে বাংলাদেশি পেসার শরিফুল ইসলাম এবং খালেদ আহমেদের বিপক্ষে দেখেশুনে শুরু করেন দিমুথ করুনারত্নে আর ওসাদা ফার্নান্ডো। টাইগার পেসারদের টেক্কা দিয়ে প্রথম ৭ ওভারে ২২ রান করে বেশ ভালোভাবেই কাটিয়ে দেন তারা।

এরপর টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল হক বল তুলে দেন তরুণ অফস্পিনার নাঈমের হাতে। নিজের পঞ্চম বলেই শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক করুনারত্নেকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন এই বোলার। তার কুইকার বল করুনারত্নের প্যাডে লাগলে জোড়ালো আবেদন করেন। একটু সময় নিলেও আম্পায়ার পরে আঙুল তুলে দেন। ফলে ১৭ বলে মাত্র ৯ রানেই সাজঘরে ফেরেন লঙ্কান অধিনায়ক।

এরপর আরেক ওপেনার ফার্নান্ডো দলকে এগিয়ে নেন কুশল মেন্ডিসকে সঙ্গে নিয়ে। ৩ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কা হাঁকিয়েও ফেলেছিলেন ফার্নান্ডো। কিন্তু এই ব্যাটারকেও ফেরান নাঈম। উইকেটের পিছনে লিটন দাসের কাছে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৭৬ বলে ৩৬ রান করেন ফার্নান্ডো।

এরপর কুশল মেন্ডিস ও ম্যাথিউস উইকেটে থিতু হন। পুরো দ্বিতীয় সেশনে বাংলাদেশের বোলারদের সামলে তুলে নেন নিজেদের ব্যক্তিগত ফিফটি। চা বিরতির আগে ইনিংসের ৪৩তম ওভারের দ্বিতীয় বলে মেন্ডিস সিঙ্গেল নিয়ে তুলে নেন নিজের ক্যারিয়ারের ১৩তম হাফ সেঞ্চুরি। অন্যদিকে ম্যাথিউস ক্যারিয়ারের ৩৮তম ফিফটি তুলে নেন খালেদ আহমেদের করা বলে রান নিয়ে।

তৃতীয় সেশনে দলীয় ১৫৮ রানে তাইজুলের স্পিন ঘুর্ণিতে নাঈম হাসানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মেন্ডিস। ফলে ম্যাথিউসের সঙ্গে ৯২ রানের জুটির সমাপ্তি ঘটে। এরপর ধনঞ্জয়া ৬ রানে সাকিবের বলে দ্রুত বিদায় নিলেও একপ্রান্ত আগলে ধরে দলকে বড় সংগ্রহের দিকে নিয়ে যেতে থাকেন ম্যাথিউস। পঞ্চম উইকেট জুটিতে দীনেশ চান্দিমালের সঙ্গে অপরাজিত ৭৫ রানের জুটি গড়ে দলকে স্বস্তিতেই দিন শেষ করে লঙ্কানরা। ম্যাথিউসের সঙ্গে চান্দিমাল দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করবে ব্যক্তিগত ৩৪ রানে।

প্রথম সেশনে ২ উইকেটে ৭৩, দ্বিতীয় সেশনে বিনা উইকেটে ৮৫ ও শেষ সেশনে ২ উইকেটে ১০০ রান করেছে লঙ্কানরা।