লেখক:

মীর তাফহীম মাহমুদ 

অষ্টম শ্রেণী 

লাকসাম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, কুমিল্লা  


টাইম ট্রাভেল বা সময় ভ্রমণ কীঃ   টাইম ট্রাভেলের নাম শুনলেই এই সম্পর্কে একটা ধারণা পাওয়া যায়। এর মানে, টাইম ট্রাভেল হচ্ছে এমন একটা মাধ্যম যা দ্বারা আমরা অতীত ও ভবিষ্যতে যেতে পারি।

 

আলবার্ট আইন্সটাইন বলেছেন আলোর গতি সর্বাধিক। সেকেন্ডে ৩০কোটি মিটার। গতিটি অনেক বেশি বলে একে সর্বাধিক ধরা হয়। সকল বিজ্ঞানীরা এর সাথে একমত।

কিন্তু তাই বলে কি এই গতিতে গেলে টাইম ট্রাভেল করা সম্ভব?

 

হ্যাঁ। বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং এর মতে সম্ভব। অর্থাৎ তার মতে, আমরা যদি আলোর গতিতে যেতে পারি তবে ভবিষ্যতে এবং অতীতে যখন ইচ্ছা যেতে পারবো।

 

কিন্তু, এই মহা বিজ্ঞানীরা যারা টাইম ট্রাভেল বিশ্বাস করে, তারা যদি সময়ের মূল অর্থ জানতো তাহলে, এরা মোটেই এই কথা বলতে পারতনা। সময়ের সঠিক সংজ্ঞা এখনো কোনো বিজ্ঞানী-ই দিতে পারেনি।

 

কারণ, সময় বলতে কিছুই নেই। সময় শুধু আমাদের একটা ধারণা যা আমরা শুধু চিন্তা করতে পারে। সময় আবিষ্কারের মূল উদ্দ্যেশ্য হলো আমরা কখন কী কাজ করবো তার একটা নির্দিষ্ট ধারণা পাওয়া। সময় আবিষ্কার হয়েছিল হিসাব-নিকাশ জন্যে।

 

সময় কবে প্রথম আবিষ্কার হয়েছিলো তার সম্পর্কে আমার কোনো ধারণা নেই।

তবে সময় আবিষ্কারের আগে মানুষ চন্দ্র ও সূর্য দেখে মানুষ ধারণা করে নিত কখন কী কাজ করতে হবে। তাদের কষ্ট কমানোর জন্য তারা সময় আবিষ্কার করেছিলো।

 

আমার মতে সময়ের সংজ্ঞা হবে এমনঃ

সময় হচ্ছে আমরা যা দেখি, দেখেছিলাম, দেখব যা করি করেছিলাম, করি , করবো। কিন্তু এই সময়ের কোনো অস্তিত্ত্ব নেই।

 

আর যদি সময়ের অস্তিত্ত্ব থাকে তবে বলবোঃ সময়ের গতি-ই সর্বোচ্চ।

কারণ, বর্তমান ধারণা মতে সর্বোচ্চ আলোর গতিকে পরিমাপ করতে হলেও সময়ের প্রতি সেকেন্ডকে একক ধরা হয়। আলো ৩০ কোটি মিটার অতিক্রম করে ১ সেকেন্ডে।

কিন্তু এই ১ সেকেন্ড সময়টাও কিন্তু অনেকক্ষণ।

 

আমরা যা দেখি অর্থাৎ বর্তমান আরো তাড়াতাড়ি ঘটে। আর সময়ের গণনাকৃত সর্ব নিন্ম মান হলোঃ  ১ ক্রোনোম সেকেন্ড এটি হলো ১ সেকেন্ডের ১ ট্রিলিওন ও ১ বিলিওন ভাগের এক ভাগ। তার থেকে আরো কম-ও হতে পারে যা অসীম পর্যন্ত যাবে।

 

অর্থাৎ আমাদের বর্তমান ঘটে যায় ১ ক্রোনোম সেকেন্ডের ও কম সময়ে।

 

অর্থাৎ, আলোর গতি ৩০ কোটি মিটার যেতে অতীত ও বর্তমানকে স্পর্শ করে।

তাঁর মানে ১ সেকেন্ডে আলো যদি সেকেন্ডে ৩০০০০০০০০ মিটার X  ১ ট্রিলিওন ও ১ বিলিওন গতি উৎপন্ন করে বর্তমানের গণনাকৃত সর্বনিম্ন সময়ের মানকে পার করতে পারে তবে টাইম ট্রাভেল করলেও করা যেতে পারে।

 

অর্থাৎ আলোর না, সময়ের অস্তিত্ত্ব থাকলে সময়ের গতির মান-ই অধিক হত ।

 

৩০০০০০০০০মিটার সময়ের গণনাকৃত গতির সামনে কিছুই না। সেকেন্ডে ৩০০০০০০০০ মিটার বেগে  গেলে আমরা শুধু সেকেন্ডে ৩০০০০০০০০ মিটার দুরত্ত্বই অতিক্রম করব। সময়ের গতিকে পার করতে হলে এই গতিকে ১ ট্রিলিওন ও ১ বিলিওন দিয়ে গুণ করতে হবে।

 

কিন্তু আমরা, মোটামুটিভাবে টাইম ট্রাভেল করছি। কারণ সময়ের গতি আমাদের পৃথিবীকে প্রতি ক্রোনো সেকেন্ডেই ভবিষ্যতে নিয়ে যাচ্ছে। অর্থাৎ আমরা সকলে সাধারণ টাইম ট্রাভেল করছি। 

আর আমরা আমাদের ভবিষ্যতের অতীতে আছি।এটি হলো সাধারণ সময় ভ্রমণ তত্ত্ব (General theory of Time travel)

আর স্টিফেন হকিং এবং আমার উপরোক্ত ধারণা হচ্ছে বিশেষ সময় ভ্রমণ তত্ত্ব।